January 27, 2023, 2:01 am
শিরোনাম:
ফরিদগঞ্জের পাইকপাড়ায় গোল্ডকাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠিত ফরিদগঞ্জে এলজিইডির টেন্ডারকৃত রাস্তায় কাজ না করিয়ে অন্য রাস্তায় করার অভিযোগ নারায়ণপুর প্রেসক্লাবের নতুন কমিটি গঠন সভাপতি আরিফ বিল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক হাসিব হাইমচরে শেখ কামাল আন্তঃস্কুল ও মাদ্রাসা অ্যাথলেটিক্স প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ ফরিদগঞ্জ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের মক্তবের শিক্ষার্থীদের পুরস্কার বিতরণ ও বিদায়ী ছাত্রদের সংবর্ধনা ফরিদগঞ্জে ডাকাতিয়া নদী অবৈধ ভাবে দখল \ উদ্ধারে জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন ফরিদগঞ্জে শেখ কামাল আন্তঃস্কুল ও মাদ্রাসা এ্যাথলেটিকস প্রতিযোগীতা শুরু ২৫ জানুয়ারি হাইমচরে নব-নিযুক্ত সপ্রাবি সহকারী শিক্ষকদের যোগদানে নবীন বরন ফরিদগঞ্জের চির্কা চাঁদপুর কলেজে ফেল করা শিক্ষার্থীদের তালা দেয়ার প্রতিবাদ করায় শিক্ষক লাঞ্ছিত \ শিক্ষকদের ধর্মঘট ফরিদগঞ্জে বন্ধ ইটভাটা চালুর দাবীতে শ্রমিকদের গণস্বাক্ষর

ফরিদগঞ্জে যুবককে প্রেমের ফাঁদে ফেলে প্রতারণা \ কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়া অভিযোগ

Reporter Name

মেহেদী হাছান ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি:

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে প্রেমের ফাঁদে ফেলে প্রতারনা করে কৌশলে কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে উল্টো আদালতে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে পারভীন আক্তার নামে এক নারীর বিরুদ্ধে। পারভীন আক্তার উপজেলার গোবিন্দপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের পূর্ব গোবিন্দপুর গ্রামের গাজী বাড়ির আলী গাজীর মেয়ে।

সরেজমিন গিয়ে ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, পারভীন আক্তার ২০১৭ সালে একই বাড়ির কালাম গাজীর ছেলে রহিম হোসেন (২৮) এর সাথে সু-কৌশলে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। ২০১৭ সালে রহিম কর্মের তাগিদে প্রবাসে পাড়ি জমায়। রহিম প্রবাসে থাকাকালীন পারভীন তার সাথে মোবাইলে যোগাগোগ বজায় রাখে। এসময় পারভীন আক্তার রহিমের অগোচরে রহিমকে বেকায়দায় ফেলতে ২০১৮ সালে ঢাকা নোটারী পাবলিকের কার্যালয়ের মাধ্যমে বিবাহের হলফনামা তৈরি করে। ওই হলফনামায় রহিম ও তার পরিবারের কারো স্বাক্ষর নেই এবং রহিম ও তার পরিবারের লোকজন এব্যাপারে কিছুই জানতো না। শুধূ তাই নয় এসময় পারভীন তার পরিবারের লোকজনকে জানায় রহিম মোবাইলে তাকে বিয়ে করেছে এবং প্রবাস থেকে ফিরে তাকে ঘরে তুলে নিবে। এরই ধারাবাহিকতায় পারভীন মোবাইলে রহিমের সাথে কথোপকথনের সময় তার পিতা আলী গাজী ও মা শিল্পী বেগমের সাথেও কথা বলার সুযোগ করে দিতো।
এদিকে, পারভীনের সাথে প্রেমের নেশায় মত্ত হয়ে রহিম তার পিতা কালাম গাজীসহ পরিবারের লোকজনের সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে পারভীন আক্তার রহিমের কাছ থেকে বিগত ৪বছরে মোবাইলে ও বিকাশের মাধ্যমে কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়। শুধু তাই নয় পারভীনের পিতা আলী গাজী তার নিজ নামীয় কতেক সম্পত্তি বিক্রয় করিবে বলে রহিমকে প্রস্তাব দেয়। সম্পত্তির মূল্য ৪লক্ষ টাকা নির্ধারন করে পারভীন ও তার পিতা আলী গাজী। এমন প্রস্তাবে সম্পত্তি ক্রয় করতে রাজী হয়ে রহিম পারভীনের নামে ১লক্ষ ৩৩হাজার টাকা ও আলী গাজীর নামে ২লক্ষ ১৫হাজার আটশত বিশ টাকা প্রেরন করে। বাকী টাকা বাড়িতে এসে পরিশোধ করবে।

কিন্তু চলতি বছরের জানুয়ারী মাসে রহিম প্রবাস থেকে বাড়ি ফিরে এসে পারভীনের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে পারভীন রহিমকে এড়িয়ে চলতে থাকে। অপরদিকে, পারভীনের পিতা আলী গাজী থেকে ক্রয়কৃত সম্পত্তি রেজিস্ট্রি করে দেয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করলে আলী গাজীও এড়িয়ে যায়। একপর্যায়ে ন্যায় বিচার পেতে এলাকার গন্যমান্য ব্যত্তিদের দ্বারস্থ হয় রহিম গাজী। এব্যাপারে কয়েকদফা সালিশ বৈঠক হলে আলী গাজী রহিমকে এক লক্ষ টাকা ফেরত দিতে রাজী হয়। পরে রহিম গাজী তার ন্যায্য পাওনা না পেয়ে বিগত ২৫ জানুয়ারী চাঁদপুরস্থ মোকাম বিজ্ঞ ফরিদগঞ্জ আমলী আদালতে পারভীন ও তার পিতা আলী গাজীকে বিবাদী করে দ; বি: ৪০৬ ও ৪২০ ধারায় একটি মামলা দায়ের করে। বর্তমানে মামলাটি সিআইডি পুলিশ তদন্ত করছে।
অপরদিকে, রহিম গাজী কতৃক মামলা দায়েরের প্রায় চার মাস পর গত ৯মে পারভীন আক্তার ও তার পরিবার নিজেদের অপরাধ ঢাকতে রহিম গাজীকে প্রধান বিবাদী করে রহিমের পিতা কালাম গাজী ও বড় ভাই জাকির হোসেন গাজীর বিরুদ্ধে চাঁদপুরস্থ মোকাম বিজ্ঞ বিচারিক আমলী আদালতে যৌতুক নিরোধ আইনে মামলা দায়ের করে। মামলায় পারভীন আক্তার নিজেকে রহিম গাজীর স্ত্রী দাবী করে ২০১৮ সালে ঢাকা নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে অসম্পন্ন বিবাহের হলফনামাটি উপস্থাপন করে। মামলাটি বর্তমানে পুলিশ ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন তদন্ত করছে।

কিন্তু, মামলা দায়েরের পর পারভীন আক্তার ও তার পরিবারের লোকজন যখন বুঝতে পারে যে, মামলায় উপস্থাপিত ২০১৮ সালে ঢাকা নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে বিবাহের জন্য সম্পাদিত হলফনামাটিতে রহিম গাজী ও তার পরিবারের কারোরই স্বাক্ষর নেই। তাই তারা কীভাবে পরভীনের দায়েরকৃত মামলাটি দিয়ে রহিম ও তার পরিবারের লোকজনকে হয়রানী করা যায় সে ফন্দি আঁটতে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৬ মে রহিম গাজী বাড়ি থেকে বাজারে যাওয়ার পথে পারভীন গংরা বহিরাগত সন্ত্রাসী দিয়ে ফিল্মি স্টাইলে জোরপূর্বক রহিমকে তুলে স্থানীয় কাজীর বাড়িতে একটি কাবিননামা সম্পাদন করে। শুধু তাই নয় পারভীন গংরা বহিরাগত সন্ত্রাসী ভাড়া করে রহিম গাজীকে প্রাণনাশের ভয়-ভীতি দেখাতে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৩জুন বিকালে স্থানীয় গাজী বাড়ির মসজিদের সামনে রহিম গাজীকে একা পেয়ে বহিরাগত সন্ত্রাসীরা এলোপাতাড়ি মারধর করে আহত করে।

এব্যাপারে অভিযুক্ত পারভীন আক্তার রহিম গাজীর সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে স্বীকার করে জানায়, ২০১৮ সালে রহিম প্রবাসে থাকাবস্থায় মোবাইলে তাদের বিয়ে হয়। সে সূত্র ধরে রহিম তাকে খরপোষ বাবদ টাকা দিয়েছে। কিন্তু প্রবাস থেকে ফিরে এসে তাকে স্ত্রী হিসাবে স্বীকৃতি না দেয়ায় বাধ্য হয়ে মামলা দায়ের করে। এক প্রশ্নের জবাবে পারভীন আরো জানায়, রহিম দেশে ফিরে আসার পরে ফরিদগঞ্জে ভাড়া বাসা নিয়ে একসাথে বসবাস করতে চাইলে আমি রাজী হইনি। কারন জানতে চাইলে সে জানায়, উভয়ের পারিবারিক সম্মতিতে আমাকে না দিলে আমি সংসার করবো না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


ফেসবুক পেজ