February 4, 2023, 4:03 pm
শিরোনাম:
হাইমচরে মেঘনা একতা যুব সমাজ কল্যান সংস্থার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে মেডিকেল ক্যাম্পিং শীত বস্ত্র বিতরণ। শেখ হাসিনা দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফুটানোর জন্য কাজ করছে. . দীপু মনি, ফরিদগঞ্জে কাবিটার কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ নিউ আইডিয়াল ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরুস্কার বিতরণ ইজতেমার মাঠের ন্যায্য অধিকার নিয়ে সংবাদ সম্মেলন রাস্তায় স্পিডব্রেকার, সাইড ওয়াল ভেঙ্গে, লাল নিশানা উড়িয়ে ট্রাক্টর দিয়ে মাটি কাটছে ইউপি চেয়ারম্যান! হাইমচরের চরভৈরবী ইউপি সদস্য মোহাম্মদ আলী আখনের নিজ অর্থায়নে রাস্তা মেরামত টঙ্গীর সিরাজ উদ্দিন সরকার বিদ্যানিকেতন এন্ড কলেজ, নবীন বরন,ওরিয়েন্টেশন ক্লাস ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত টঙ্গীতে আদালতের বুঝিয়ে দেয়া জমিতে কাউন্সিলরের বাধা টঙ্গীতে গাজীপুর মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাথে কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের পরিচিতি ও মতবিনিময় সভা

ফরিদগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদ উন্নয়ন সহায়তা তহবিল প্রকল্পে নিম্ন মানের ঢালাইয়ের কাজ

Reporter Name

মেহেদী হাছান ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি :

উপজেলার ৪নং সুবিদপুর (প.) এলাকায় ইউনিয়ন পরিষদ উন্নয়ন সহায়তা তহবিলের অর্থায়ানে করা একটি রাস্তা যাচ্ছে-তাই ভাবে করে যাচ্ছে ঠিকাদার। দেখার কেউ নেই।

প্রকল্পটির নাম ‘উত্তর চৌরাঙ্গা জামাল পাটওয়ারী বাড়ির অভিমুখে রাস্তা সিসি ঢালাইকরণ।’ ঠিকাদার রাস্তাটি তার খেয়াল খুশি মত করে যাচ্ছে। অভিযোগেরভিত্তিতে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়,নিম্ন মানের শুরকী,প্রয়োজনের তুলনায় খুবই কম ব্যবহার করছে সিমেন্ট। ৩ ইঞ্চি ঢালাই দেয়ার কথা থাকলেও ১ ইঞ্চি দিয়ে কাজ সেরে নিচ্ছেন ঠিকাদার। এলাকাবাসীর অভিযোগ ঠিকাদার ইমাম হোসেন বর্তমান চেয়ারম্যানের ভাই হওয়াতে ইচ্ছা মত কাজ করে যাচ্ছে।

একই প্রকল্প হলেও দুই বাড়ির দু’টি রাস্তা হচ্ছে। একটি রাস্তা একদিন আগে (৩ জুন) করেছেন। একদিন পরই বৃষ্টির পানিতে উপরের আস্তর খসে গিয়ে ইটের কনা
দৃশ্যমান হয়ে গেছে। নিম্ম মানের ঢালাই এর কারনে এই অবস্থা বলে অভিযোগ করেন এলাকাবাসী।

ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সচিবের অভ্যন্তরিন কাজের তদারকির কথা থাকলেও তিনি ঢালাই চলাকালিন সময় একটি বারের জন্যও প্রকল্প এরিয়া পরিদর্শন করেননি। মূলত তার গাফিলতের কারনেই এ সমস্যা হয়েছে বলে এলাকাবাসী মনে করেন।

কাজের তদারকি করা এক ব্যক্তির সাথে এ বিষয়ে কথা বলতে গেলে তিনি কথা না বলে এড়িয়ে যান। প্রকল্পের ঠিকাদার চেয়ারম্যানের ভাই মো. ইমাম হোসেনকে না পেয়ে তার মুঠো ফোনে কল দেয়া হয়। একাদিক কল দিয়েও তার সাথে যোগাযোগ করা যায়নি বলে বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে ৪নং সুবিদপুর ইউনিয়ন পরিষদ সচিব আমির হোসেন বলেন, ‘এই প্রকল্পের ঠিকাদার চেয়ারম্যানের ভাই। উনারাতো সঠিকভাবেই কাজ করার কথা।
সমস্যা নেই, পরীক্ষা-নিরিক্ষার পরই বিল পাস হবে।’
চেয়ারম্যান মো. মহসিন হোসেন বলেন, ‘আমি এখনো রাস্তার কাজ দেখিনি। দেখা ছাড়া কোনো বক্তব্য দিতে পারবো না।’

এ বিষয়ে কথা বলতে দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে গিয়ে তাকে না পেয়ে একাধিকবার তাঁর মুঠো ফোনে কল দিয়ে পাওয়া যায়নি। তাই তার বক্তব্যও নেয়া সম্ভব হয়নি।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.


ফেসবুক পেজ