1. haimcharbarta2019@gmail.com : haimchar :
নাসিরনগরে এক শিক্ষককে পিটিয়ে আহত করে ঘরের আসবাব পত্র ভাংচুর নগদ ২ লক্ষ টাকা লুট - হাইমচর বার্তা
সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ০৪:৫৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
হাইমচরে ভাশুরে কু- প্রস্তাবে রাজি না হওয়া হামলার শিকার মা ও মেয়ে হাইমচরে প্রত্যাশা সার্বিক গ্রাম উন্নয়ন সমবায় সমিতি বার্ষিক সভায় ফরিদগঞ্জে আই স্পোর্টস উন্মুক্ত ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল সম্পন্ন চ্যাম্পিয়ন ‘খান সিটি ক্রিকেট একাদশ’ সাংবাদিক মুনাওয়ার কাননের কাল জন্মদিন হাইমচরে ৩৭০ পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী ইমাম হোসেন আটক ফরিদগঞ্জে র‍্যালি ও কেক কাটার মাধ্য দিয়ে বিপি দিবস পালিত ব্যাংকে জমি বন্ধক রেখে ঋন, বন্ধকী জমি বিক্রয়ে গ্রাহক ও ম্যানেজারের প্রতারনা যৌন হয়রানি করে প্রধান শিক্ষক জেলে বরখাস্ত করেনি সভাপতি বাঘায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে গাছ কর্তন, থানায় অভিযোগ মোহনপুরে ধূরইল ইসলামিয়া বালিকা দাখিল মাদ্রাসার বিনম্র শ্রদ্ধায় পালিত অমর একুশে

নাসিরনগরে এক শিক্ষককে পিটিয়ে আহত করে ঘরের আসবাব পত্র ভাংচুর নগদ ২ লক্ষ টাকা লুট

  • Update Time : রবিবার, ৬ মার্চ, ২০২২
  • ১০৩ Time View

মোঃ আব্দুল হান্নানঃ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগরে এক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষককে পিটিয়ে মারাত্বক আহত করে ঘরের ভেতর আটকে রেখে ঘরে থাকা একটি এলইডি টিভি ও আলমারী ভেঙ্গে নগদ ২ লক্ষ টাকা ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনা ঘটেছে।ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার পুর্ব নরহা গ্রামে।ওই শিক্ষকের নাম মোঃ রাসেল মিয়া।সে ভেলুয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালের সহকারী শিক্ষক বলে জানায়।

শিক্ষক রসেল মিয়া জানায়,তার ছোট চাচা মোঃ ইসহাক মিয়া ও তার প্রতিবেশী কোয়রপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মিজবাহ উদ্দিনের ইন্ধনে তার বড় ভাই আশার সহকারী ম্যানেজার ও ভাইয়ের স্ত্রী ভাড়াটিয়া লোক দ্ধারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে।ওই শিক্ষকের দাবী সে এখন নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছে।শিক্ষক রাসেল মিয়া বর্তমানে নাসিরনগর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

ওই ঘটনায় শিক্ষক রাসেল মিয়া বাদি হয়ে তার বড় ভাই আশার সহকারী ম্যানেজার মোঃ তোফাজ্জল হোসেন সোহেল,শিক্ষক মিজবাহ উদ্দিন,সোহেলের স্ত্রী লিপি বেগম,ইসহাক মিয়া ও উহেদা বেগম ৫ জনকে আসামী করে নাসিরনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করে।

শিক্ষক রাসেল মিয়া জানায়,মিজবাহ উদ্দিন একজন শিক্ষক নামের কলংক।তার কাজ হল বিভিন্ন পরিবারের লোকজনের মাঝে ঝগড়া সৃষ্টি করা।মিজবাহ একজন ক্রিমিনাল প্রকৃতির লোক।কোন এক সময় তার ক্রিমিনালীর কারনে তার স্কুলের দপ্তরী কাম নৈশপ্রহরী মিজবাহকে পিটিয়ে তার হাত ভেঙ্গে ফেলে।পরে খবর পেয়ে ওই নৈশ প্রহরীর স্ত্রী তার স্বামীকে বাচাতে আসলে শিক্ষিক মিছবাহ নৈশ প্রহরীর স্ত্রীর শ্লীলতাহানি করার চেষ্টা করে।পরে ওই ঘটনায় মিজবাহর বিরোদ্ধে মামলা হয়।বর্তমানেও শিক্ষক মিজবাহ ও তার ছেলে মিনহাজ একটি মামলার আসামী।তাছাড়াও শিক্ষক মিজবাহ উদ্দিনের বিরোদ্ধে রয়েছে আরো বহু অভিযোগ।সে যখন যে দল ক্ষমতায় আসে সেই দলের সাথে লিয়াজু করে নানা অপকর্ম চালিয়ে যায়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও
© স্বর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Theme Customized By BreakingNews